আরবী ভাষা ও মাতৃভাষা

চিত্র ১ – যেসব দেশে মাতৃভাষা ত্যাগ করে আজকাল প্রধানত আরবী ভাষা বলার প্রচলন আছে।

চিত্র ১ – যেসব দেশে মাতৃভাষা ত্যাগ করে আজকাল প্রধানত আরবী ভাষা বলার প্রচলন আছে।

মিশরীয় জাতি – ভাষা এবং সংস্কৃতির ক্ষেত্রে মিশরীয় লোক আরবী বলা যায়, কিন্তু বংশগতভাবে তারা পুরোপুরি পৃথক। তাদের প্রাচীন কপ্ত্‌বা ⲘⲉⲧⲣⲉⲙÌⲛⲭⲏⲙⲓ (মেৎরেমেঙ্কিনি) ভাষা আজকাল শুধু ঈসায়ী সমাজের মধ্যে ব্যবহার করা হয়।

আসিরিয় ভাষা ছিল প্রাচীন মেসেপতেমিয়া (বর্তমান ইরাক) এলাকার মাতৃভাষা। আজকাল ঈসায়ী এবং দূরুজ সমাজ ছাড়া সবাই এই মাতৃভাষা ত্যাগ করে আরবী ভাষা ব্যবহার করে।

নূবীয় জাতিরা – বর্তমান উত্তর সুদান দেশের অধিকাংশ লোক আজকাল আরবী বাসাতে ব্যবহার করে থাকেন। তবুও কিছু কিছু মানুষদের মধ্যে তাদের আগেকার নূবীয় উপভাষাগুলো ব্যবহার করে থাকেন।

বেরবের জাতি – মাঘরেবের অধিকাংশ লোক বংশগত আরব নয়, তবে এখন অধিকাংশ বাসাতে আরবী ব্যবহার করা হয়।

বর্তমান লেবানন দেশের আদীবাসিরা শুধু আরবী ভাষা ব্যবহার করেন যুদিও তারা বংশগতভাবে ফিনিশীয়। তাদের সেই প্রাচীন ফিনিশীয় ভাষা লুপ্ত হল ৭০০ খ্রীষ্টাব্দ যখন আরব ভাষা এলাকাতে প্রথম আসল।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।